থাপ্পড় দিয়ে জেলা মহিলা কর্মকর্তাকে পাবনাছাড়া করার হুমকি মহিলা এমপির

০৮ মার্চ,২০২২

থাপ্পড় দিয়ে জেলা মহিলা কর্মকর্তাকে পাবনাছাড়া করার হুমকি মহিলা এমপির

নিজস্ব প্রতিবেদক
আরটিএনএন
ঢাকা: পাবনায় আন্তর্জাতিক নারী দিবসের অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ জানাতে দেরি হওয়ায় পাবনা জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা কানিজ আইরিন জাহানকে থাপ্পড় দিয়ে পাবনাছাড়া করার হুমকি দিয়েছেন সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য নাদিরা ইয়াসমিন জলি।

জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মঙ্গলবার জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে আন্তর্জাতিক নারী দিবসের অনুষ্ঠানে নিজেই অভিযোগটি করেন।

বর্তমানে সংসদ সদস্য নাদিরা ইয়াসমিন জলির কথপোকথনের একটি অডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে।

পাবনা জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা কানিজ আইরিন জাহান অভিযোগ করেন, আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে মহিলা বিষয়ক অধিদফতরের অনুষ্ঠানে সংসদ সদস্য নাদিরা ইয়াসমিন জলিকে প্রধান অতিথি করা হয়েছিল। দাফতরিক ব্যস্ততার কারণে আমন্ত্রণপত্র দিতে একটু দেরি হয়। সোমবার সকাল ১১টায় সদর উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান শামসুন্নাহার রেখা আমাকে ফোন করেন। জানতে চান, সংসদ সদস্যকে কেন চিঠি দেয়া হয়নি? তখন আমি তাকে জানাই যে, চিঠি পাঠানো হচ্ছে। ঠিক এ সময় সংসদ সদস্য নাদিরা ইয়াসমিন জলি ভাইস চেয়ারম্যানের কাছ থেকে ফোন নিয়ে আমাকে গালিগালাজ করতে শুরু করেন। এক পর্যায়ে আমাকে থাপ্পড় দিয়ে পাবনাছাড়া করবেন বলে ধমক দেন।

তিনি বলেন, আমার কাজে অনিয়ম, ভুল-ত্রুটি পেলে তিনি (সংসদ সদস্য) বকা দিতে পারেন, প্রশাসনিক ব্যবস্থা নিতে সুপারিশ করতে পারেন। কিন্তু থাপ্পড় দেয়ার কথা বলতে পারেন না। আমার মা-বাবাও তো কখনো আমাকে থাপ্পড় দেননি। অথচ নারী দিবসে আমাকে এমন একটি পরিস্থিতির সম্মুখীন হতে হলো।

কানিজ ফাতেমা বলেন, আমি এখানে সরকারের দায়িত্ব পালন করতে এসেছি, নারী দিবসের দিনে থাপ্পড় খেতে নয়। ঘটনার পর থেকে আমি মানসিক-শারীরিকভাবে অসুস্থ হয়ে পড়েছি। সকাল থেকেই আমার প্রেসার বেড়ে গেছে। টেনশন কাজ করছে। আমি উপর মহলে বিষয়টি অবগত করেছি।

মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা যখন এ অভিযোগ করছিলেন, সেই অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করছিলেন পাবনার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (স্থানীয় সরকার) মোখলেসুর রহমান। পেছনে টানানো ব্যানারে দেখা যায়, অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি হিসেবে সংসদ সদস্য নাদিরা ইয়াসমীন জলির নাম রয়েছে।

অনুষ্ঠানের সভাপতি অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মোখলেসুর রহমান সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে বলেন, মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মৌখিকভাবে অভিযোগ করেছেন। এ ব্যাপারে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ সিদ্ধান্ত নেবেন।

এ ব্যাপারে সংরক্ষিত আসনের নারী সংসদ সদস্য নাদিরা ইয়াসমিন জলি বলেন, মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা দুর্নীতিপরায়ণ, স্বেচ্ছাচারী। মহিলা এমপি হওয়া সত্বেও নারী দিবসের অনুষ্ঠানে মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা আমাকে আমন্ত্রণ জানানোর প্রয়োজন মনে করেননি। নারী সমাজের প্রতিনিধিকে অপমান, অবজ্ঞা, তাচ্ছিল্য করেছেন।

মন্তব্য

মতামত দিন

দেশজুড়ে পাতার আরো খবর

মাঠ প্রশাসনে হঠাৎ কেন নিরাপত্তা ঝুঁকি

নিউজ ডেস্কআরটিএনএনঢাকা: দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটের ইউএনও ওয়াহিদা খানমের ওপর হামলার ঘটনার পর উপজেলা পর্যায়ে প্রশাসনের কর্মকর . . . বিস্তারিত

সেনা-পুলিশে বিরোধের কোনো সুযোগ নেই: দুই বাহিনীর প্রধান

নিজস্ব প্রতিবেদকআরটিএনএনঢাকা: পুলিশের গুলিতে মেজর (অব.) সিনহা মো. রাশেদ খানের নিহত হওয়ার ঘটনাকে একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা বলে . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 

ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com