করোনায় দুই কোটি মেয়ে শিক্ষা বঞ্চিত হবে

২১ সেপ্টেম্বর,২০২০

করোনায় দুই কোটি মেয়ের স্কুলে না ফেরার শঙ্কা মালালার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আরটিএনএন
ইসলামাবাদ: করোনার প্রকোপে বিশ্বব্যাপী আর সবকিছুর মতো বন্ধ হয়ে যায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানও। করোনা রোধে আরোপিত বিধিনিষেধ শেষ কিংবা শিথিল হলে হয়তো শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে যাবে। কিন্তু শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলেলেও দুই কোটি মেয়ে শিক্ষার্থীর আরও কখনোই স্কুলে ফেরা হবে না বলে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন শান্তিতে নোবেলজয়ী মালালা ইউসুফজাই।

করোনা সংকট কাটিয়ে ধীরে ধীরে স্থবির পৃথিবীর গতি ফিরতে শুরু করেছে। তবে স্বাভাবিক জীবনযাপনে ফেরার চেষ্টা শুরু হলেও এখনো প্রচুর সময় প্রয়োজন। মূলত কোনো ভ্যাকসিন না আসায় পুরোপুরি স্বস্তি আসছে না। এই পরিস্থিতিতে অধিকাংশ আক্রান্ত দেশে এখনও বন্ধ স্কুল–কলেজসহ অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। অনিশ্চয়তা মধ্যে রয়েছে বিশ্বের ১৬০ কোটি শিক্ষার্থীর শিক্ষা জীবন।

তবে বিশ্ব এই পরিস্থিতি সামলে উঠলে দেশে দেশে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো ফের খুলে দেয়া হবে এটা সত্যি। কিন্তু তা সত্তেও কতজন নারী শিক্ষার্থী পুনরায় স্কুলে পড়াশোনা করতে যাবেন, তা নিয়ে প্রবলভাবে সন্দিহান মালালা। জাতিসংঘের এক অনুষ্ঠানে বক্তৃতা দেয়ার সময় তাই নারী শিক্ষার্থী ঝড়ে পড়ার আশঙ্কার কথাই শোনালেন তিনি।

মালালা বলেন, ‌‌‌‘মহামারি সংকট শেষ হলেও কেবল শিক্ষাক্ষেত্রে আরও দুই ‌কোটি মেয়ে ঝড়ে পড়বে। যাদের আরও কখনোই ফেরা হবে না স্কুলে। ইতোমধ্যে‌ গোটা বিশ্বে শিক্ষাক্ষেত্রে বরাদ্দের ঘাটতি ২০০ বিলিয়ন মার্কিন ডলারে দাঁড়িয়েছে।‌’

পাকিস্তানের জাতীয় দৈনিক ডনের প্রতিবেদন অনুযায়ী জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের আয়োজিত একটি আয়োজনের বিরতিতে দেয়া বক্তৃতার সময় মালালা বলেন, নারী শিক্ষার মতো বিশ্বের সামষ্টিক লক্ষ্যগুলো অর্জনে মারাত্মক আঘাত হেনেছে কভিড-১৯।

মালালা আরও বলেন, ‌‘‌১২ বছর বয়সী প্রত্যেক শিশুকে সমান শিক্ষা প্রদানে আর কবে প্রয়োজনীয় তহবিল বরাদ্দের প্রতিশ্রুতি দেবেন?কবে শান্তি ও শরণার্থীদের সুরক্ষাকে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দেবেন?‌ আর কবে আপনারা পরিবেশ দূষণ রোধে পদক্ষেপ নেবেন?‌’‌‌

প্রসঙ্গত গত মাসে প্রকাশিত জাতিসংঘের প্রতিবেদন অনুযায়ী করোনা ১৯০ দেশের ১৬০ কোটি শিক্ষার্থীকে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে; এমন এর আগে কখনো হয়নি। এই সংকটে যে ৯৪ শতাংশ শিক্ষার্থী ক্ষতিগ্রস্ত, তাদের ৯৯ শতাংশ নিম্ন এবং নিম্ন-মধ্যম আয়ের দেশের।

পাকিস্তানের প্রত্যন্ত সোয়াত উপত্যকায় জন্ম নেওয়া মালালা তালেবানের বাধার পরও নারীশিক্ষা বিস্তারে কাজ করে যাওয়ায় ২০১২ সালে জঙ্গিরা তাকে গুলি করে। ২০১৪ সালে সবচেয়ে কম বয়সী হিসেবে নোবেল শান্তি পুরস্কার লাভ করেন তিনি।

মন্তব্য

মতামত দিন

এশিয়া পাতার আরো খবর

তালেবান নিষেধাজ্ঞাকে ‘বুড়ো আঙুল’ দেখাচ্ছে আফগান মেয়েরা

আন্তর্জাতিক ডেস্কআরটিএনএনঢাকা: তালেবান দ্বিতীয় দফায় আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখলের প্রায় আড়াই মাস পেরিয়ে যাচ্ছে। প্রথম দফার . . . বিস্তারিত

ন্যাটোকে পাল্টা হুঁশিয়ারি চীনের

আন্তর্জাতিক ডেস্কআরটিএনএনঢাকা: সম্প্রতি বেলজিয়ামের রাজধানী ব্রাসেলসে একদিনের ন্যাটো সম্মেলনে বেইজিংয়ের সামরিক তৎপরতা নিয় . . . বিস্তারিত

 

 

 

 

 

 

ফোন: +৮৮০-২-৮৩১২৮৫৭, +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, ফ্যাক্স: +৮৮০-২-৮৩১১৫৮৬, নিউজ রুম মোবাইল: +৮৮০-১৬৭৪৭৫৭৮০২; ই-মেইল: rtnnimage@gmail.com